মেয়েদের শরীরে অবাঞ্ছিত লোম কেন হয়?

মেয়েদের শরীরে অবাঞ্ছিত লোম কেন হয়?

🇨🇭 পুরুষদের মতো অনেক সময় মহিলাদের মুখে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি লোম দেখা দেয়। শুধু মুখেই নয়, মেয়েদের শরীরের যেসব স্থানে সাধারণত লোম থাকার কথা নয়, সেসব স্থানে লোম হলে তাকে অবাঞ্চিত লোম বলে। যেমন: ঠোঁটের উপরে, চিবুক, থুতনি, বুকে, পিঠে সহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায়। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় এই অবাঞ্চিত লোম বৃদ্ধিকে – হারসুটিজম ( Hirsutism ) বলা হয়।

🇨🇭 যেকোনো বয়সের মহিলাদের জন্য ব্যাপারটি অত্যন্ত বিরক্তিকর।
মেয়েদের অবাঞ্ছিত লোম-এর সাথে হরমোনের সম্পর্ক,
মেয়েদের শরীরে এন্ড্রোজেন বা পুরুষ হরমোনের পরিমাণ খুবই কম থাকে। কিন্তু কখনো ডিম্বাশয় বা এড্রেনাল গ্রন্থি থেকে এই এন্ড্রোজেন বেশি পরিমাণে তৈরি হলে বা এন্ড্রোজেনের অধিক কার্যকারিতার কারণে এই রোগ দেখা দিতে পারে। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 হরমোনের অসামঞ্জ্যস্যতার কারণে এছাড়াও আরও বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

মেয়েদের শরীরে অবাঞ্ছিত লোম কেন হয়?

🇨🇭 হরমোনাল ইমব্যালেন্স হলে কী লক্ষণ প্রকাশ পায়?

  • 🩸 গলার স্বর বা কন্ঠ ভারি হয়ে যেতে পারে।
  • 🩸 অতিরিক্ত ব্রণ এর সমস্যা দেখা দিতে পারে।
  • 🩸 কখনো কখনো চুল পড়ে যেয়ে টাক দেখা দিতে পারে।
  • 🩸 তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যা দেখা দেয়।
  • 🩸 ঘাড়ে, গলায়, বগলে কালো দাগ দেখা দিতে পারে।

🇨🇭 মেয়েদের অবাঞ্ছিত লোম কী কারণে হয়?

🩸 পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিন্ড্রোম বা (PCOS), এ সমস্যা সাধারণত বয়:সন্ধিতেই শুরু হয়। এর পরেও হতে পারে, যার কারণে শরীরে অতিরিক্ত লোম বা ফেসিয়াল হেয়ার, অনিয়মিত পিরিয়ড, স্থুলতা, ইনফার্টিলিটি এবং কখনও কখনও ওভারিতে সিস্টও দেখা দেয়।

🩸 কুশিং সিন্ড্রোম নামে এক রোগেও শরীরে অতিরিক্ত লোম হতে পারে। শরীরে স্ট্রেস হরমোন বা কর্টিসল এর পরিমাণ বেড়ে গেলে এ রোগ দেখা দেয়।

🩸 জন্মগত ত্রুটি বা কনজেনিটাল এড্রেনাল হাইপারপ্লাসিয়া থাকলে এড্রেনাল গ্রন্থি থেকে অতিরিক্ত স্টেরয়েড জাতীয় হরমোন, যেমন:এন্ড্রোজেন হরমোন, কর্টিসল হরমোন নি:সৃত হয়। সে ক্ষেত্রে হিরসুটিজিম দেখা দিতে পারে। যার কারণে মেয়েদের অবাঞ্ছিত লোম বা অতিরিক্ত ফেসিয়াল হেয়ারের সমস্যা দেখা দেয়।

🩸 ওভারি অথবা এড্রেনাল গ্রন্থিতে কোন টিউমার থাকলে অতিরিক্ত এন্ড্রোজেন হরমোন নি:সৃত হয়। সেক্ষেত্রেও হিরসুটিজম দেখা দিতে পারে, অর্থাৎ আপনার মুখে অতিরিক্ত লোম দেখা দিতে পারে।

🩸 কিছু কিছু স্টেরয়েড জাতীয় মেডিসিনের অতিরিক্ত মাত্রা এবং দীর্ঘমেয়াদি ব্যবহারের জন্যেও মেয়েদের অবাঞ্ছিত লোম গজাতে পারে।

🩸 অনেক সময় বংশগতভাবেও শরীরে লোমের আধিক্য হয়ে থাকে।

🩸 যদি হরমোন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপি নেওয়া হয়, সেক্ষেত্রেও হারসুটিজম হতে পারে।

🩸 অনেক সময় পরীক্ষা নিরীক্ষা করেও এর সঠিক কোনো কারণ নির্ণয় করা যায় না। গোত্র বা জাতিভেদে কিছু কিছু অঞ্চলের মেয়েদের মুখে, শরীরে লোমের আধিক্য দেখা যায়। যেমন: মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়ার মেয়েদের এমন হতে দেখা যায়। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

মেয়েদের শরীরে অবাঞ্ছিত লোম কেন হয়?

🇨🇭 মেয়েদের অবাঞ্চিত লোমের জটিলতা গুলো কী কী?

🩸 মেয়েদের অবাঞ্চিত লোমের কারণে শারীরিক কোনো সমস্যা হয় না। তবে ফেইসে বেশি পরিমাণে লোম গজালে সেটা ভেতরের কোনো অসুস্থতাকে নির্দেশ করতে পারে। কারো যদি এর সাথে অনিয়মিত পিরিয়ড ও স্থুলতা থাকে, তাহলে তার পলিসিস্টিক ওভারি আছে, এমনটা ধারণা করা যেতে পারে। উপরের ঠোঁটে, থুতনিতে, বুকে, পিঠে অবাঞ্চিত লোম থাকলে বিব্রতবোধ করেন নারীরা। অনেকে মানসিকভাবেও এটা নিয়ে কষ্ট পান, হীনমন্যতায় ভোগেন। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে মেয়েদের অবাঞ্চিত লোমের করা যায়। ব্লাড টেস্ট, আল্ট্রাসাউন্ড এবং এক্স-রে এর মাধ্যমে যথাক্রমে রক্তে হরমোনের তারতম্য, ওভারিয়ান টিউমার বা সিস্ট এবং এড্রেনাল গ্রন্থির অসামঞ্জ্যস্যতা নির্ণয় করা যায়।
সঠিক রোগ নির্ণয় পদ্ধতির মাধ্যমে যদি শরীরে লোম বেড়ে যাওয়ার কারণটা বের করা যায়, তাহলে
হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে তা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব। যদি বাড়তি ওজন থাকে, তাহলে ব্যায়াম করে ওজন নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। সঠিক খাদ্যাভ্যাসও গড়ে তুলতে হবে। হোমিও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে এই ব্যাপারে। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 তাহলে জেনে নিলেন মেয়েদের অবাঞ্ছিত লোম বা অতিরিক্ত ফেসিয়াল হেয়ার কেন হয়। ফেইসে যদি এই ধরনের আনওয়ান্টেড হেয়ার বা পশম দেখতে পান, তাহলে সেটা আপনার ভেতরের কোনো শারীরিক জটিলতাকেও নির্দেশ করতে পারে। তাই সময় থাকতেই সচেতন হতে হবে। নিজে সচেতন হোন এবং অন্যকেও সচেতন করুন। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 মহিলাদের শরীরের অযাচিত লোম লজ্জায় ফেলছে?হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম। মহিলাদের মধ্যে অনেকেরই শরীরে লোমের আধিক্য বেশি। বিশেষত হাতে এবং পায়ে। আর এই লোমের জন্য দায়ী কিন্তু হরমোন।

🇨🇭 হার্সুটিজম এমন একটি পরিস্থিতি, যেখানে মহিলাদের মুখ, বুক ও পিঠে পুরুষদের মতো চুল বা লোম উঠতে শুরু করে।
এন্ড্রোজেন নামক পুরুষ হরমোনের ক্ষরণ বৃদ্ধি পেলে মহিলাদের মধ্যে এই সমস্যা দেখা যায়। অবাঞ্ছিত রোমের জন্য দায়ী হরমোন।

🇨🇭 কিছু মহিলার মুখে ও শরীরের নানান অংশে অনেক বেশি চুল দেখা যায়। এই অযাচিত পরিস্থিতিকে হার্সুটিজম বলা হয়। মহিলাদের মুখ ও শরীরে হাল্কা রঙের লোম থাকে, কিন্তু হার্সুটিজমের ক্ষেত্রে মোটা ও কালো লোম দেখা যায়। এই অযাচিত লোম মুখ, হাত, পিঠ ইত্যাদি যে কোনও স্থানে উঠতে পারে। মহিলাদের যে হার্সুটিজম হয়, তা সাধারণত পুরুষ হরমোনের সঙ্গে জড়িত। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 হার্সুটিজম কী? হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম। হার্সুটিজম এমন একটি পরিস্থিতি, যেখানে মহিলাদের মুখ, বুক ও পিঠে পুরুষদের মতো চুল বা লোম উঠতে শুরু করে। এন্ড্রোজেন নামক পুরুষ হরমোনের ক্ষরণ বৃদ্ধি পেলে মহিলাদের মধ্যে এই সমস্যা দেখা যায়। এতে বিশেষত টেস্টোস্টেরন হরমোন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। পুরুষদেরও এই সমস্যা হতে পারে।

আরো পড়ুনঃ  মেয়েদের যৌনাঙ্গ টাইট করার হোমিও ঔষধ কি?

🇨🇭 হার্সুটিজমের লক্ষণ কী?

🇨🇭 হার্সুটিজম মহিলাদের শরীরের এমন কিছু অংশে শক্ত ও গাঢ় রঙের লোম দেখা দেয়, যা সাধারণত দেখা দেওয়ার কথা নয়। যেমন: মুখ, বুক, পেটের তলদেশ, জঙ্ঘা, পীঠ।

🇨🇭 এন্ড্রোজেন নামক হরমোনের স্তর বৃদ্ধি পেলে ধীরে ধীরে অন্যান্য লক্ষণ বিকশিত হতে পারে। এই প্রক্রিয়াকে ভাইরিলাইজেশান বলা হয়। এর লক্ষণগুলি হল:

  • 🧪 স্বর ভারী হওয়া।
  • 🧪 মাথায় টাক পড়া।
  • 🧪 পিম্পল।
  • 🧪 স্তনের আকার ছোট হওয়া।
  • 🧪 মাংসপেশীর বৃদ্ধি।
  • 🧪 ক্লাইটোরিস বেড়ে যাওয়া।
  • 🧪 আবার দ্রুত ওজন বৃদ্ধি, অত্যধিক ক্লান্তি, মুড পরিবর্তন, পেলভিক পেন, মাথা ব্যথা, বন্ধ্যাত্ব, ঘুমে সমস্যা হার্সুটিজমের সাধারণ লক্ষণ। কোনও কোনও ক্ষেত্রে উচ্চ রক্তচাপ, হাড় ও মাংসপেশী দুর্বল হয়ে যাওয়ার সমস্যাও দেখা যায়। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।
মেয়েদের শরীরে অবাঞ্ছিত লোম কেন হয়?
🇨🇭 হার্সুটিজমের কারণ- হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 পলিসিস্টিক ওভারি সিন্ড্রোম- যৌবন অবস্থায় এটি দেখা যায়। মহিলাদের শরীরের সেক্স হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে এমন হয়ে থাকে। কয়েক বছরে ( PCOS ) এর কারণে মহিলাদের শরীরে অধিক লোম, অনিয়মিত মাসিক, ওজন বৃদ্ধি, বন্ধ্যাত্ব ইত্যাদি নানান সমস্যা দেখা দেয়। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 কুশিং সিন্ড্রোম- শরীরে কোর্টিসোল হরমোনের পরিমাণ বেড়ে গেলে এই সিন্ড্রোম দেখা যায়। প্রেডনিসোনের মতো ওষুধ দীর্ঘ দিন ধরে ব্যবহার করলে বা অ্যাড্রিনালিন গ্রন্থির অধিক কোর্টিসোল তৈরির কারণে এমন হতে পারে। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🩸 কংজেনিটাল অ্যাড্রিনাল হাইপারপ্লাসিয়া:
এ ক্ষেত্রে অ্যাড্রিনাল গ্রন্থি অত্যধিক পরিমাণে কোর্টিসোল ও অ্যান্ড্রোজেন-সহ স্টেরয়েড হরমোন উৎপাদন করে থাকে।

🩸 টিউমার- ডিম্বাশয় বা অ্যাড্রিনাল গ্রন্থিতে টিউমার হলেও হার্সুটিজম হতে পারে।

🇨🇭 ওজন খুব বেশি হলে চিকিৎসক আপনাকে ওজন কম করতে বলতে পারেন। কারণ ওজন ঠিক থাকলে হরমোনের পরিমাণ নিয়ন্ত্রণের মধ্যে থাকবে। PCOS বা অ্যাড্রিনাল ডিসঅর্ডার হলে এর ওষুধও দিতে পারেন চিকিৎসকরা। হার্সুটিজম নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য চিকিৎসকরা গর্ভনিরোধক ওষুধ খাওয়ার পরামর্শ দিতে পারেন। এর ফলে হরমোনের সঠিক পরিমাণ নিশ্চিত করা যায়।

🇨🇭 হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে মেয়েদের অবাঞ্চিত লোমের করা যায়। ব্লাড টেস্ট, আল্ট্রাসাউন্ড এবং এক্স-রে এর মাধ্যমে যথাক্রমে রক্তে হরমোনের তারতম্য, ওভারিয়ান টিউমার বা সিস্ট এবং এড্রেনাল গ্রন্থির অসামঞ্জ্যস্যতা নির্ণয় করা যায়।
সঠিক রোগ নির্ণয় পদ্ধতির মাধ্যমে যদি শরীরে লোম বেড়ে যাওয়ার কারণটা বের করা যায়, তাহলে
হোমিও চিকিৎসার মাধ্যমে তা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব। যদি বাড়তি ওজন থাকে, তাহলে ব্যায়াম করে ওজন নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। সঠিক খাদ্যাভ্যাসও গড়ে তুলতে হবে। হোমিও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে এই ব্যাপারে। হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

ডাঃ মাসুদ হোসেন

🇨🇭 ডাঃ মাসুদ হোসেন।
Dr. Masud Hossain.
( ডি, এইচ, এম, এস ) ঢাকা।
রেজিস্টার্ড হোমিওপ্যাথিক চিকিৎসক এন্ড প্রাইভেট প্র্যাক্টিশনার। ( রেজি: নং- 35423 )

🇨🇭 বাংলাদেশ হোমিওপ্যাথি বোর্ড। [ নিবন্ধন নং- Gov.Reg. No. 35423 ] রেজিস্ট্রার প্রাপ্ত ডাক্তারের পরামর্শ নিন। হোমিও গবেষক / হোমিও বিশেষজ্ঞ চট্টগ্রাম।

🇨🇭 আমার এই দুইটি নাম্বার:

   +8801907-583252
   +8801302-743871

( What’sApp- হোয়াটসঅ্যাপ এবং Imo- ইমো ) খোলা আছে, চিকিৎসা নিতে চাইলে আমার এই দুইটি নাম্বার ফোনে সেভ করে সমস্যাগুলো লিখে অথবা অডিও রেকর্ড দিয়ে জানাবেন। আমি ফ্রী হয়ে সঠিক তথ্য দিয়ে চিকিৎসা দিতে চেষ্টা করব ইনশাআল্লাহ।

🛑 অরিজিনাল জার্মানী ঔষধ ও উন্নত চিকিৎসার জন্য একটি বিশ্বস্ত প্রতিষ্ঠান।

🇨🇭 রোগী দেখার সময়:
🛑 বিকাল 05:00 রাত 10:00 টা পর্যন্ত।

🇨🇭 সতর্কতাঃ চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাওয়া ঝুকিপূর্ণ।

☎+8801907-583252 (WhatsApp, IMO)।

☎ +8801302-743871 (WhatsApp, IMO)।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার সমস্যা মন খুলে বলুন।
Send via WhatsApp
error: Content is protected !!